ডা. মুরাদের বাসার আশেপাশে পুলিশের টহল বাড়ানো হয়েছে

0

হুমকি-ধামকির অভিযোগ এনে স্ত্রী ডা. জাহানারার দায়ের করা সাধারণ ডায়েরির (জিডি) পর সাবেক তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের বাসার আশেপাশে পুলিশের টহল বাড়ানো হয়েছে। জিডির তদন্ত অফিসার ধানমন্ডি থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক রাজিব হাসান গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় তিনি জানান, ‘জিডির পর ডা. জাহানারা এহসান ও তার সন্তানদের সর্বাত্মক নিরাপত্তা দেওয়ার চেষ্টা করছেন। বাসার আশেপাশে পুলিশের টহল বাড়ানো হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বাসা থেকে বের হয়ে যাওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত ডা. মুরাদ হাসান বাসায় আসেননি।’

এর আগে, জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন করে পুলিশের সহযোগিতা চেয়েছিলেন সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের স্ত্রী ডা. জাহানারা এহসান। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তিনি রাজধানীর ধানমন্ডি থানায় ডা. মুরাদের বিরুদ্ধে একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।
এর আগে, বৃহস্পতিবার দুপুরে ডা. জাহানারা ফোন করে পুলিশকে জানান, তাকে মারধর করা হচ্ছে। এমনকি প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। পরে ৯৯৯ থেকে বিষয়টি জানানো হয় ধানমন্ডি থানা পুলিশকে। এর পরই পুলিশের একটি টিম ডা. মুরাদের বাসায় যায়। পুলিশ যাওয়ার পর সন্ধ্যায় লিখিত অভিযোগ করার জন্য মুরাদের স্ত্রী থানায় আসেন বলে জানান ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ধানমন্ডি জোনের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) ফয়জুর রহমান।

এ ব্যাপারে ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকরাম আলী মিয়া বলেন, ৯৯৯ থেকে কল পেয়ে সাবেক প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানের ১৫ নম্বর সড়কের বাসায় পুলিশ পাঠানো হয়েছে। স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতন ও প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগ আনেন ডা. জাহানারা। এরপর তিনি তার স্বামী ডা. মুরাদের বিরুদ্ধে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ এনে একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। ওই অভিযোগের বিষয়ে পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানান ওসি ইকরাম।

ডা. মুরাদ হাসান জামালপুর-৪ (সরিষাবাড়ী) আসনের এমপি। বিভিন্ন বিষয়ে বিতর্কিত বক্তব্য ও কর্মকান্ডের কারণে প্রায়ই মুরাদ সংবাদের শিরোনামে থাকতেন। অশালীন, শিষ্টাচারবহির্ভূত, নারীর প্রতি চরম অবমাননাকর বক্তব্য প্রদান এবং এক চিত্রনায়িকার সঙ্গে অশালীন ফোনালাপ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর প্রতিমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেন ডা. মুরাদ। এর পরই ৭ ডিসেম্বর ডা. মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় অভিযোগ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীরা।

ওই সময় পুলিশ জানায়, ঢাবির শিক্ষার্থী জুলিয়াস সিজার তালুকদার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পক্ষে ডা. মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় একটি অভিযোগ করেন। তার বিরুদ্ধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী শিক্ষার্থীদের চরিত্র হননের অপচেষ্টা এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে একটি গোষ্ঠীর মধ্যে বিরোধ সৃষ্টির অভিযোগ আনা হয়েছে। অভিযোগটি সাইবার ক্রাইম ও রাজনৈতিক হওয়ায় এটি সাইবার ক্রাইম ইউনিটে পাঠানো হয়। প্রতিমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগের পরই তাকে আওয়ামী লীগ থেকেও বহিষ্কার করা হয়। বিতর্কের মুখে দেশ ত্যাগ করলেও কানাডায় ঢুকতে না পেরে দেশে ফিরে আসেন তিনি। এর পর থেকেই আড়ালে রয়েছেন ডা. মুরাদ হাসান।

Leave A Reply

Your email address will not be published.